logo
- - Aug 19, 2019 - Mon

   জাতীয়

জামায়াতের বহিষ্কৃতরা নতুন দলের ঘোষণা দেবেন


বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী থেকে বহিষ্কৃত নেতা ইসলামী ছাত্র শিবিরের সাবেক সভাপতি মজিবুর রহমান মঞ্জু নতুন দল গঠনের ঘোষণা দেবেন।



মূলত জামায়াতে যারা সংস্কার চান, যারা মুক্তিযুদ্ধে জামায়াতের ভূমিকার জন্য ক্ষমা চাওয়ার পক্ষে এবং একাত্তরে জামায়াতের ভূমিকার দায় যারা নিতে চান না তারাই এ রাজনৈতিক উদ্যোগের সঙ্গে আছেন।

নতুন দল গঠনের ব্যাপারে জানতে চাইলে বিষয়টি স্বীকার করে মজিবর রহমান  বলেন, আমি মিডিয়াগুলোতে চিঠি দিয়েছি। সাড়ে ১১টায় বিজয়নগরে হোটেল ৭১ এর হলরূমে সংবাদ সম্মেলন হবে।

জানা গেছে, জামায়াতে ইসলামী থেকে বহিষ্কার হওয়ার আগে থেকেই নতুন প্রজন্মের নেতাকর্মীদের নিয়ে নতুন দল গড়ার জন্য কাজ করছেন মজিবুর রহমান মঞ্জু। দীর্ঘদিন এ নিয়ে কাজ করলেও এখনই তারা নতুন রাজনৈতিক দলটির নাম ঘোষণা দিচ্ছেন না। তবে ‘জনআকাঙ্ক্ষার বাংলাদেশ’ নামে একটি সমন্বয় কমিটি গঠন করে যাবতীয় কার্যক্রম পরিচালনা করা হবে। এ কমিটির প্রধান হচ্ছেন জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় মজলিসে শুরার সদস্য (সদ্য বহিস্কৃত) মজিবুর রহমান মঞ্জু। তিনি একসময় ইসলামী ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি ছিলেন। এছাড়া বন্ধ হয়ে যাওয়া দিগন্ত টেলিভিশনেরও পরিচালক ছিলেন।

মজিবুর রহমান মঞ্জু বলেন, এ উদ্যোগ ধর্মভিত্তিক নয়, এমনকি সুনির্দিষ্ট তত্ত্বের আদলে আদর্শভিত্তিকও নয়। সম্ভাব্য ঘোষণাপত্রে বলা হয়েছে, ‘জন আকাঙ্ক্ষার বাংলাদেশ’ হচ্ছে একদল আশাবাদী মানুষের উদ্যোগ ও তাদের ভাবনা। এতে তুলে ধরা হবে ভবিষ্যৎ রাজনৈতিক পরিকল্পনার কথা। যারা এ কাফেলায় শরিক হতে চান, তাদের সংগঠিত করার কাজ শনিবার থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হবে।

মঞ্জু জানান, জনআকাঙ্ক্ষার বাংলাদেশ নামে উদ্যোগ শুরু হলেও রাজনৈতিক দলের নাম, লোগো-পরিচয় আরও পরে নির্ধারণ করা হবে। নতুন এ উদ্যোগের সমন্বয়ক হিসেবে কাজ করবেন তিনি।

মহান মুক্তিযুদ্ধে জামায়াতের বিতর্কিত ভূমিকার কারণে দীর্ঘদিন ধরে অনেকেই জামায়াতে ইসলামীর সংস্কার চাচ্ছেন। এ নিয়ে কথা বলতে গিয়ে বহিষ্কারও হয়েছেন কেউ কেউ। অনেকে আবার স্বেচ্ছায় দলত্যাগ করেছেন। সংস্কার চাওয়া এসব ব্যক্তি ও এ মতাদর্শের বিভিন্ন পেশাজীবীকে নিয়ে নতুন দল গঠনের উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে। তবে নতুন রাজনৈতিক এ উদ্যেগে জামায়াত ত্যাগ করা ব্যারিস্টার আবদুর রাজ্জাকের ভূমিকা কী হবে, তা এখনও স্পষ্ট নয়।

জানা গেছে, জামায়াতের বর্তমান সময়ের সবচেয়ে প্রভাবশালী নেতা দলের সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল ব্যারিস্টার আব্দুর রাজ্জাকের পদত্যাগের পরদিন জামায়াত থেকে বহিষ্কৃত হন ইসলামী ছাত্রশিবিরের সাবেক সভাপতি মজিবুর রহমান মঞ্জু। এর আগে ১৯৮২ সালে শিবিরের সাবেক সভাপতি আহমদ আবদুল কাদেরকে সংগঠন থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছিল। ওই কমিটির সেক্রেটারি ফরীদ আহমদ রেজাকেও সরে যেতে হয়েছিল। আহমদ আবদুল কাদের এখন ২০ দলীয় জোটভুক্ত খেলাফত মজলিসের মহাসচিব ও ফরীদ আহমদ রেজা লন্ডনে বসবাস করছেন।

এদিকে নতুন দল গড়ার লক্ষ্যে যারা জামায়াতে ইসলামী ছাড়তে চান, তাদের ঠেকাতে মরিয়া দলটির শীর্ষ নেতৃত্ব। দলত্যাগ বা ভাঙন ঠেকাতে দেশে-বিদেশে তাদেরব্যাপক তৎপরতা চলছে। কথা বলার জন্য জামায়াত নেতাদের ফোনে কল দিলেও তারা রিসিভ করেননি।




আজকের সকল সংবাদ

  বিজ্ঞাপন প্যানেল

  সম্পাদকীয়

  অনলাইন জরিপ

  পুরনো সংখ্যা


 



  বিজ্ঞাপন প্যানেল